1. multicare.net@gmail.com : নিউজ জনতার সময় :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০১:৫৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের নামে ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ।। চরফ্যাশনে রিকশা চালককে মারধর করে ফাঁকা স্টাম্পে স্বাক্ষর নিলেন ইউপি সদস্য চরফ্যাশনে চরমানিকায় জেলে চাল বিতরণ অনিয়ম।। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল ভোলার চরফ্যাশনে মেঘনা নদীর ঢালের মাটি কাটায় অর্থদন্ড।। “প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা” সামিয়া রহমান পুষ্পের শুভ জন্ম দিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চরফ্যাশন প্রেসক্লাব।। ভোলার চরফ্যাশনে জুস তৈরির কারখানার সন্ধান মালিক আয়াতুল্লাহ জেলে।। ঢালচরের ভূমিদস্যু কালাম বাহিনীর তান্ডবে দিশেহারা অসহায় ভুমিহীনরা।। তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে নিরব, জলিল কে পিটিয়ে আহত করেন, জুয়েল ও শাহাবউদ্দিনহাওলাদর।।

ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের নামে ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ।।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৩ মে, ২০২৪
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার।। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ৭ নং ওয়ার্ডের রফিকুল ইসলামের সাথে দ্বিতীয় বিয়ে হয় হাজারীগন্জ ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মোঃকামালের মেয়ে তানিয়ার সাথে ইসলামিক সরা শরিয়ত মোতাবেক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের পর থেকে ভালো ভাবে সংসারটি চলে আসছিল,কিন্তু তানিয়ার সাবেক স্বামীর সাথে কথা বলতে দেখে কথার কাটাকাটির মধ্যে দিয় শুরু হয় তুমুল ঝগড়া। রফিকুল ইসলাম জানান আমি আমার প্রথম স্তী অসুস্থ হওয়ার কারনে আমি দ্বিতীয় বিয়ে করি,কিন্তু বিয়ের কয়েক মাস আগে আমার থেকে আমার শশুর ও শাশুড়ী হাওলাত বাবদ ৫,৫০,০০০(পাঁচ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা )৩৫০ টাকা দামের স্টাম্পে স্বাক্ষর দিয়ে টাকা দার নেয়।এরপর আমার সাথে তার মেয়ে তানিয়াকে দিয়ে মোবাইলে কথা বলায় আমি তারপর জানতে পারি তানিয়ার একটি বিয়ে হয় এরপর আমার দাদা শশুর কালাম ফরাজি আমাকে বাড়ীতে নিয়ে বিয়ের কথা পাকাপাকি করে এর পর ২ লক্ষ টাকা দেনমোহরে আমার সাথে বিয়ে হয় বিয়ের পর থেকে ভালো ভাবে সংসারটি কাটিয়ে ছি। রফিকুল ইসলাম আরও বলেন আমি যখন আমার শশুর বাড়ীতে যাই তারপর আমার শাশুড়ী আমাকে বলে আপনি ৫ হাজার টাকা দিন তারপর তানিয়ার সাথে কথা বলতে পারবেন আমি অসহায় হয়ে তানিয়ার মায়ের কাছে টাকা দিলে আমার স্ত্রী তানিয়ার সাথে কথা বলতে পারতাম এরকম যতদিন তাদের বাড়ীতে যাই ততদিনেই এই ঘটনা করতেন তানিয়ার মা আমার শাশুড়ী। তিনি আরও বলেন এই পর্যন্ত আমার ১৫ থেকে ২০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়,আমি টাকা চাইলে আমাকে আর পাত্তা দেননি আমি এখন নিরুপায় হয়ে ভিবিন্ন জায়গায় দরখাস্ত করতে বাধ্য হয়েছি কারন এরকম কোন পুরুষ যাতে প্রতারিত না হয়।রফিকুল ইসলাম বলেন আমি যখন টাকার চাপ দেই তখন আমাকে আমার শশুর ও শাশুড়ী এবং দাদা শশুর তাদের বাড়ীতে যেতে বলে তখন আমার বড় স্ত্রী ও পুত্র বধুকে নিয়ে আমার শশুর বাড়ীত যাই তখন টাকার হিসাবে না বসিয়া আমাকে ও আমার স্ত্রী কে মারধর করে এবং কথিত এক ফিরোজ ও হাতুড়ি ডাক্তার রুহুল আমিন ধাক্কা মেরে আমাকে ও আমার আত্মীয় স্বজনকে বাড়ী থেকে বের করে দিয়ে বলে তোর কোন বাপ আছে নিয়ে আয়। আমি গন্যমান্য ব্যাক্তিদেরকে নিয়ে জানাইয়া চলে আসি।তানিয়ার মা বলেন আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি কিন্তু জামাই কে দেখলে তানিয়া পাগলের মতো করে এজন্য কবিরাজ দেখিয়ে ভালো করে জামাইর সাথে দিয়ে দিবো।তানিয়ার দাদা কালাম ফরাজি বলেন বিয়ে দিয়েছে আমার ছেলে ও ছেলের বউ কি করবে তারা জানে।কামাল ফরাজি বলেন মেয়ে বিয়ে দিয়েছি যদি মেয়ে না থাকে তাহলে বিচারে বসে ফয়সালা করে আসবো।হাজারীগন্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃসেলিম হাওলাদার বলেন বিষয়টি আমি শুনেছি কিন্তু আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনি অভিযোগ করলে আমি ইউনিয়ন পরিষদের আইন অনুযায়ী ব্যাবস্হা নেব।শশীভুশন থানার অফিসার্স ইনচার্জ ম এনামুল হক বলেন আমি এবিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে আইন গত ব্যাবস্হা নেব।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews