1. multicare.net@gmail.com : নিউজ জনতার সময় :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
শেখ হাসিনার উপহার পেলেন ১৮ হাজার গৃহহীন পরিবার।। ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের প্রতারণা থেকে বাছতে চায় সাগর।। উপজেলা নির্বাচন চরফ্যাসনে চেয়ারম্যানসহ তিন প্রার্থীর নিরংকুশ বিজয়।। চরফ্যাশনে শালিসি করে দিবে বলে ঢেকে নিয়ে স্ত্রী কে দিয়ে লাঞ্চিত করার অভিযোগ।। ভোলার চরফ্যাশনে সৌদিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে ‘অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার অভিযোগ’ ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের নামে ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ।। চরফ্যাশনে রিকশা চালককে মারধর করে ফাঁকা স্টাম্পে স্বাক্ষর নিলেন ইউপি সদস্য চরফ্যাশনে চরমানিকায় জেলে চাল বিতরণ অনিয়ম।। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল ভোলার চরফ্যাশনে মেঘনা নদীর ঢালের মাটি কাটায় অর্থদন্ড।।

সাবিনা আক্তার ও জাহাঙ্গীর ভেন্ডারের বিরুদ্ধে – চরফ্যাশনে মায়ের ওয়ারিশি ও খরিদা সম্পত্তি বুজে পাইতে থানায় ও উপজেলা পরিষদে অভিযোগ।।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০২৩
  • ৩৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ভোলা থেকে।। নানা আঃবারিকের মৃত্যতে মায়ের ওয়ারিশি নিজের ও খরিদা সম্পত্তি বুঝিয়া পাইতে চরফ্যাশন থানায় এবং উপজেলা পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মৃত মাষ্টার হারুনর রশীদের ছেলে মোঃনজরুল ইসলাম (মঞ্জু )নামের এক ব্যাক্তি মায়ের পাওনা ৩২ শতাংশ ওয়ারিশি সম্পত্তির দাবীতে পৌর ৬ নং ওয়ার্ডের সাবিনা আক্তার( ৪৪)( সালাম মাষ্টারের মেয়ে) ও পৌর ৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর ভেন্ডারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন উপজেলার চরফ্যাশন পৌর সভার উত্তর মাদ্রাজ এ ঘটনা ঘটে। নির্ভর যুগ্য সুত্রে এবং কাগজপত্র পর্যালোচনায় জানাযায় মোঃনজরুল ইসলাম (মঞ্জু )পিতা মৃত মাষ্টার হারুনর রশীদ উওর মাদ্রাজ ১ নং ওয়ার্ডে এসএ ১৩০/১৩১ খতিয়ানর ২২৫৬/২২৫৭ ও ২২৬৯ দাগের ১.৯৪ একর সম্পত্তির মধ্যে তার মা ছলেমা খাতুন পৈত্রিক ও ওয়ারিশি সুত্রে ৩২ শতাংশ জমির মালিক নিযুক্ত হন।প্রায় ২০-২২ বছর পর অভিযোগ কারী মোঃনজরুল ইসলাম (মঞ্জু) দের বাড়ির পিছনে তার মামা সালাম মাষ্টারের খরিদা ২৯ শতাংশ (যাহার দলিল নং ৫৮৭২) চাষাবাদের জন্য বোন ছলেমার পাওয়া পৈত্রিক ওয়ারিশি ৩২ শতাংশ জমির পরিবর্তে তার খরিদা জমি বুঝিয়ে দেন।উক্ত ২৯ শতাংশ জমি জনৈক শামসুদ্দিন মাষ্টার গংরা ক্রয় সুত্রে মালিকানা দাবি করেন। এবিষয়ে স্হানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃহোসেন মিয়ার গ্রাম আদালতে কাগজ পএ পর্যালোচনায় দেখা যায় সালাম মাষ্টারের খরিদা ৫৮৭২ নং দলিলটি শামসুদ্দিন মাষ্টার গংদের দলিলের ৩ বছর আগের।অপর দিকে অভিযোগকারীর মাতা ছলেমা খাতুনের জীবদ্দশায় তার পৈত্রিক ওয়ারিশি ৩২ শতাংশ সম্পত্তি গত ২৩/১০/১৯৯৭ ইং তারিখে আবেদনকারী মঞ্জু কে রেজিস্ট্রারী দলিল দিয়ে যায়। এদিকে সালাম মাষ্টারের মৃত্যুর পর তার সাবিনা আক্তারকে মঞ্জুর মায়ের ওয়ারিশি বন্টন কৃত জমি দখল চাইলে সাবিনা আক্তার মাত্র ০৮ শতাংশ জমি তাদেরকে (মঞ্জুকে)ভোগ দখল দেন।তবে বাকি জমি মঞ্জুদেরকে বুঝিয়া না দিয়ে দেই দিচ্ছি করে অন্যার কাছে বিক্রির জন্য পায়তারা করে আসছে। এমতাবস্থায় অভিযোগকারী মঞ্জু তার মায়ের পৈত্রিক ওয়ারিশি এবং তার নামে প্রদত্ত রেজিস্ট্রারি দলিল অনুযায়ী ৩২ শতাংশ জমির ভোগ দখল বুঝিয়া পাইতে চরফ্যাশন থানায় এবং উপজেলা পরিষদে পৃথকভাবে দুটি অভিযোগ দায়ের করেন বলে জানিয়েছেন মোঃনজরুল ইসলাম (মঞ্জু)।এবিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন আখন বলেন আমার কাছে একটি অভিযোগ করেছে আমি জিন্নাগড় ইউপি চেয়ারম্যান কে দায়িত্ব দিয়েছি। চরফ্যাশন থানার অফিসার্স ইনচার্জ মুরাদ হোসেন বলেন আমি অভিযোগ পেয়েছি প্রতিপক্ষকে থানায় আশার জন্য বলেছি এখনো আসেনি তবে আসলে ইউপি চেয়ারম্যান সহকারে ফয়সালা করে দিব।জিন্নাগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃহোসেন মিয়া বলেন উভয় পক্ষের সাথে আমার কথা হয়েছে তারিখ দিয়ে ফয়সালা করে দিবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews