1. multicare.net@gmail.com : নিউজ জনতার সময় :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
শেখ হাসিনার উপহার পেলেন ১৮ হাজার গৃহহীন পরিবার।। ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের প্রতারণা থেকে বাছতে চায় সাগর।। উপজেলা নির্বাচন চরফ্যাসনে চেয়ারম্যানসহ তিন প্রার্থীর নিরংকুশ বিজয়।। চরফ্যাশনে শালিসি করে দিবে বলে ঢেকে নিয়ে স্ত্রী কে দিয়ে লাঞ্চিত করার অভিযোগ।। ভোলার চরফ্যাশনে সৌদিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে ‘অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার অভিযোগ’ ভোলার চরফ্যাশনে বিয়ের নামে ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ।। চরফ্যাশনে রিকশা চালককে মারধর করে ফাঁকা স্টাম্পে স্বাক্ষর নিলেন ইউপি সদস্য চরফ্যাশনে চরমানিকায় জেলে চাল বিতরণ অনিয়ম।। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল ভোলার চরফ্যাশনে মেঘনা নদীর ঢালের মাটি কাটায় অর্থদন্ড।।

চরফ্যাশন উপজেলার যুবদল ও বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের ১৫ হাজার নেতাকর্মীর ঢাকায়।।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

মোঃইলিয়াছ চরফ্যাশন উপজেলা প্রতিনিধি।।
আগামী ২৮ অক্টোবরের সমাবেশকে কেন্দ্র করে চরফ্যাশন থেকে ঢাকায় যাওয়ার পথে বিএনপির প্রায় ১৫ হাজার নেতাকর্মী। সেখানে তারা হোটেল-মোটেল কিংবা মসজিদে না থেকে আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে থাকবেন- এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
চরফ্যাশন উপজেলা চরফ্যাশন বিএনপি’র অভিভাবক জননেতা জনাব আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন আলম ভাইয়ের একান্ত বিস্ত চরফ্যাশন উপজেলা বিএনপির সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব “মোতাহার হোসেন আলমগীর মালতিয়া ও চরফ্যাশন উপজেলার যুবদলের সংগ্রামী সভাপতি জননেতা জনাব হাজী আশরাফুর রহমান দিপু জানান, চরফ্যাশন উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে যুবদলও বিএনপির অঙবগ সংগঠন রয়েছে। প্রতিটি অঙ্গসংগঠনের থেকে কমপক্ষে ৫শ জন করে নেতাকর্মী ঢাকায় যাবেন। সবমিলিয়ে যার সংখ্যা কমপক্ষে ১৫ হাজার।
চরফ্যাশন উপজেলা বিএনপির সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব “মোতাহার হোসেন আলমগীর মালতিয়া অভিযোগ করেন, এ সমাবেশকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই চরফ্যাশনে বিএনপির নেতাকর্মীদের েউপর হামলা শুরু করেছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনি।তিনি জানান, এ পর্যন্ত চরফ্যাশন উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের ৭ জন নেতা কর্মীর উপর হামলা করেছে ।
চরফ্যাশন উপজেলার যুবদলের সংগ্রামী সভাপতি জননেতা জনাব হাজী আশরাফুর রহমান দিপু ফরাজী জানান, ইতোমধ্যে অনেকেই ঢাকায় চলে গেছেন, কেউ যাচ্ছেন এবং কেউ যাবেন। যারা ঢাকায় যাচ্ছেন বা যাবেন তাদের বলা হয়েছে যাতে হোটেল-মোটেলে না থেকে আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে ওঠেন।
এদিকে বিএনপির একটি সূত্র জানায়, বিএনপির ইউনিয়ন সভাপতি কিংবা সাধারণ সম্পাদক যে কেউ একজন ঢাকায় যাবেন। অপরজন এলাকাতেই থাকবেন। যাতে কোনো ধরনের নির্দেশ এলে এলাকা থেকে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারেন। সেই হিসেবেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিটিইউনিয়নের একজন শীর্ষ নেতা ঢাকায় যাবেন।
আগামী ২৮ অক্টোবর রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে মহাসমাবেশ করবে বিএনপি। এই মহাসমাবেশ থেকে সরকার পতনের মহাযাত্রা শুরু করা হবে বলে ঘোষণা দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews